দুদককে রাতকানা বাদুর বললেন রিজভী

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ২১ মার্চ ২০১৮, বুধবার, ১২:১০
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, দুদক হল রাতকানা বাদুরের মতো। সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা মন্ত্রিত্ব করছেন। তখন তার চোখ কানা হয়ে যায়। আজ বুধবার নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। রিজভী আহমেদ বলেন, দুইজন মন্ত্রী সাজাপ্রাপ্ত। রাতকানা বাদুর এইজন্যই বলছি।
সারাদেশে সরকারি অর্থ লুট হচ্ছে। সোনালী ব্যাংক, বেসিক ব্যাংক, পদ্মা সেতুতে লুট হচ্ছে। সেখানে দুদক কিছু দেখছেননা। অথচ বিএনপির বেলায় তারা রাতকানা বাদুরের মতো আচরণ করছেন। যে অন্ধ, যে কানা সে কখনো অপরের স্বচ্ছতা দেখতে পায় না। তিনি বলেন, দুদক দলীয় এজেন্ডা নিয়ে এখানে কাজ করছেন। যার চাকরি করছেন তার কথা শুনতে হচ্ছে। একদলীয় শাসনের নির্দয় রূপ আমরা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে দেখতে পাচ্ছি। যারা একটু বিবেকবান তাদের বন্দুকের নল দিয়ে সরিয়ে দেয়া হয়। তাদের কোথাও স্থান নেই।  রিজভী আরো বলেন, খালেদা জিয়াকে যে প্রক্রিয়ায় আটকে রাখা হয়েছে তাতে মনে হচ্ছে তার কাছ থেকে একটা মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টায় আছে। তারা ভাবছে এভাবে করলে খালেদা জিয়া হয়তো এক পর্যায় সব মেনে নেবেন। এক তরফা নির্বাচন ও খালেদা জিয়াকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখার জন্যই এই নির্দয় ষড়যন্ত্র করছে। সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বলেন, আমি চ্যালেঞ্জ করে বলতে চাই, এদেশে যদি সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় সে নির্বাচনে বিএনপি বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে ক্ষমতায় আসবে।

[আলিম/এফএম]

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

অদ্ভুত উটের পিঠে ঢাবি প্রশাসন

আতঙ্ক কাটছে না কোটা আন্দোলনকারীদের

ডাকসুর সাবেক চার ভিপি যা বললেন-

এবার বাস চাপায় পা গেল রোজিনার

আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দল ভারত যাচ্ছে আজ

খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে নোংরা রাজনীতিতে সরকার

সিরিয়া পরিস্থিতি: মুখোমুখি পরাশক্তিরা

৩৪ কাউন্সিলর প্রার্থীর মামলা বিচারাধীন

জাহাঙ্গীর-হাসানের মিল-অমিল

কমনওয়েলথ উচ্চ পর্যায়ের গ্রুপে আরো প্রতিনিধি অন্তর্ভুক্তির পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

সাত দফার ভিত্তিতে জাতীয় ঐক্যের ডাক গণফোরামের

সন্তানের কান্না, মায়ের আকুতিতে ভারি পরিবেশ

কোন্দলে আওয়ামী লীগ বিএনপির একক প্রার্থী

রনির ঘোষণাই ঠিক ভারপ্রাপ্ত স. জাকারিয়া

স্বাধীনতাবিরোধীদের সন্তানদের চাকরিতে অযোগ্য ঘোষণার দাবি

সিলেটে যেভাবে সোহাগের লাশ গুম করে ঘাতকরা