আলাপন

‘এ বছরই হয়তো সেরে ফেলতে পারি’

বিনোদন

ফয়সাল রাব্বিকীন | ১৯ মার্চ ২০১৮, সোমবার | সর্বশেষ আপডেট: ৫:০২
চলতি সময়ের জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী দিলশাদ নাহার কনা। প্রায় দেড় যুগ ধরে গান করছেন। ক্যারিয়ারের শুরুতেই তিনি নিজেকে একজন ভালো শিল্পী হিসেবে প্রমাণ করেছিলেন। এরপর করে গেছেন কঠিন সাধনা। সে কারণেই পিছনে ফিরে আর তাকাতে হয়নি তাকে। ধারাবাহিকভাবে বেশ কিছু জনপ্রিয় গান তিনি শ্রোতাদের উপহার দিয়েছেন।
বিশেষ করে চলতি সময়ে সিনেমার গানের অন্যতম নির্ভরযোগ্য নারী কন্ঠশিল্পীতে পরিণত হয়েছেন কনা। তার কণ্ঠে সিনেমার অনেক গানই শ্রোতাপ্রিয়তা পেয়েছে। সিনেমার বাইরে অ্যালবাম ও সিঙ্গেল গানও করে যাচ্ছেন নিয়মিত। এর বাইরে বিজ্ঞাপনেও কন্ঠ দিয়ে থাকেন তিনি। পাশাপাশি জিঙ্গেল গাওয়াতো রয়েছেই। তবে সব থেকে কনা বেশি ব্যস্ত সময় পার করছেন স্টেজে। দেশ-বিদেশের বড় শোগুলোতে পারফর্ম করছেন। সব মিলিয়ে কেমন আছেন। কেমন চলছে বর্তমান দিনকাল? কনা হেসে বলেন, বেশ ভালো। গানের মধ্য দিয়ে সময়টা চলে যাচ্ছে। এর বাইরে কোনো কিছু করার সুযোগটা কম পাই। তবে আমি গানের এই ব্যস্তাতাটা উপভোগও করি। বর্তমানে মূলত কি নিয়ে চলছে ব্যস্ততা? কনা বলেন, স্টেজ শো, নতুন গান রেকর্ডিং, জিঙ্গেল, বিজ্ঞাপনে কন্ঠ দেয়া-এ সব নিয়েই ব্যস্ততা চলছে। তবে স্টেজ শো নিয়েই ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে বেশি। কারণ শীত মৌসুমের পরও অনেক শো এর আয়োজন হচ্ছে। বর্ষা মৌসুমের আগ পর্যন্ত টানা ব্যস্ততা থাকবে স্টেজে। স্টেজ শো করতে কেমন লাগে? কনা উত্তরে বলেন, আমি স্টেজে খুব স্বাচ্ছ্বন্দ্যবোধ করি। কারণ এখানে শ্রোতাদের সরাসরি গান শোনানো যায়। আবার সরাসরি তাদের সাড়াও পাওয়া যায়। এটা একজন শিল্পীর জন্য দারুণ সুখের। তাই আমি খুব উপভোগ করি স্টেজ শো। নতুন অ্যালবাম কি করছেন? কনা বলেন, পূর্ণ অ্যালবামতো আর এখন হয় না। এতগুলো গানের প্রচারণাও সম্ভব হয় না। তাই একটি ইপি অ্যালবাম করতে পারি সামনে। এই সময়ের সুরকাররা এর কাজ করবেন। আশা করছি ভালো কিছু হবে। এর বাইরে আমি নিজের উদ্যোগেও কিছু গান তৈরি করে রেখেছি। এগুলো চলতি বছরের নির্দিষ্ট সময় পর পর ভিডিও আকারে প্রকাশ করবো। আর সিনেমার গান কেমন চলছে? কনা বলেন, অনেক ভালো। সম্প্রতি আমার গাওয়া ‘দিল দিল দিল’ গানটি তিন কোটির মাইলফলক অতিক্রম করেছে ইউটিউবে। দুই বাংলার মধ্যে এটাই সর্বোচ্চ ভিউয়ের গান। বিষয়টি বেশ আনন্দের। এছাড়াও ‘ও ডিজে’ গানটিও এক কোটির ঘর অতিক্রম করেছে আগেই। তবে ভিউটা বড় বিষয় নয়, শ্রোতাদের ভালো লাগাই সব থেকে বড় বিষয়। জিঙ্গেল ও বিজ্ঞাপনে কণ্ঠ দেওয়া কেমন চলছে? কনা বলেন, এগুলো আমার খুব প্রিয় কাজ। বিজ্ঞাপনের জিঙ্গেলে আমি প্রচুর কণ্ঠ দিয়েছি। এখনও দিচ্ছি। একেক সময় দেখি টানা কেবল আমার জিঙ্গেল গাওয়া বিজ্ঞাপন টিভিতে চলছে। এটা খুব ভালো লাগার ব্যাপার। আর আমি তো গায়িকা। গান গাই। কিন্তু বিজ্ঞাপনে কন্ঠ দেয়াটা আমার কাছে অন্যরকম বিষয়। এটা খুব মজা করে করি আমি। বিজ্ঞাপনে নিয়মিতই কন্ঠ দিচ্ছি। বিজ্ঞাপনে নিজের কন্ঠ শুনতে অন্যরকম ভালোলাগা কাজ করে। বর্তমানে অডিও ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা কেমন মনে হচ্ছে? কনা উত্তরে বলেন, এখন আসলে ডিজিটাল যুগ। ডিজিটালি গান প্রকাশ হচ্ছে। মানুষ ইউটিউবে গান শুনছে। গান শোনাটাও অনেক সহজ হয়েছে। এখন কোম্পানিগুলোও নিয়মিত কাজ করছে। যদিও গত বছরের তুলনায় কম। তারপর একটি ধারা রয়েছে গান প্রকাশের। আবার যে কোনো শিল্পী নিজের গানের স্বত্ব রেখে গান প্রকাশ করতে পারছে। এটা বেশ ভালো একটি ব্যাপার। আমার মনে হয় সামনে অডিও ইন্ডাস্ট্রির অবস্থা আরও ভালো হবে। এবার অন্য প্রসঙ্গে আসি। আপনি বিয়ে করছেন কবে? কনা হেসে বলেন, বিয়েটা আসলে সৃষ্টিকর্তা যখন চাইবেন তখনই হবে। তবে কাজটা হয়তো এ বছরই সেরে ফেলতে পারি। দেখা যাক কি হয়।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

অদ্ভুত উটের পিঠে ঢাবি প্রশাসন

আতঙ্ক কাটছে না কোটা আন্দোলনকারীদের

ডাকসুর সাবেক চার ভিপি যা বললেন-

এবার বাস চাপায় পা গেল রোজিনার

আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দল ভারত যাচ্ছে আজ

খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে নোংরা রাজনীতিতে সরকার

সিরিয়া পরিস্থিতি: মুখোমুখি পরাশক্তিরা

৩৪ কাউন্সিলর প্রার্থীর মামলা বিচারাধীন

জাহাঙ্গীর-হাসানের মিল-অমিল

কমনওয়েলথ উচ্চ পর্যায়ের গ্রুপে আরো প্রতিনিধি অন্তর্ভুক্তির পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

সাত দফার ভিত্তিতে জাতীয় ঐক্যের ডাক গণফোরামের

সন্তানের কান্না, মায়ের আকুতিতে ভারি পরিবেশ

কোন্দলে আওয়ামী লীগ বিএনপির একক প্রার্থী

রনির ঘোষণাই ঠিক ভারপ্রাপ্ত স. জাকারিয়া

স্বাধীনতাবিরোধীদের সন্তানদের চাকরিতে অযোগ্য ঘোষণার দাবি

সিলেটে যেভাবে সোহাগের লাশ গুম করে ঘাতকরা