নি র্বা চ নী হা ল চা ল- চট্টগ্রাম(১)

বড় দু’দলেই একাধিক প্রার্থী

শেষের পাতা

আনোয়ারুল হক নিজামী, মীরসরাই (চট্টগ্রাম) থেকে | ১৫ মার্চ ২০১৮, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৫৮
চট্টগ্রামের প্রবেশদ্বার মীরসরাই। দেশের বৃহত্তম ইকোনমিক জোন এখানে। আর এ মীরসরাই উপজেলা নিয়ে গঠিত চট্টগ্রাম-১ আসন। একাদশ জাতীয় নির্বাচন ঘিরে ইতিমধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রচারণা শুরু করেছেন। দেশের প্রধান বড় দুই দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের গণমুখী ব্যস্ততা দিন দিন বাড়ছে। পূর্ব দিগন্তে সারি সারি পাহাড় আর পশ্চিমে সমুদ্র বেলাভূমি। মাঝখানে বয়ে গেছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক। সব দিক মিলিয়ে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মীরসরাই আসনটি আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দুই দলের কাছেই গুরুত্বপূর্ণ।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক ভাবে অনেকটা এগিয়ে।
তৃণমূলপর্যায়ে সাংগঠনিক ঐক্য দৃঢ় করার লক্ষ্যে এবং জনগণের কাছে বর্তমান সরকারের আমলে গৃহীত বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরতে উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন ও দুই পৌরসভায় জনসমাবেশ করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগ। গত ২৪শে ফেব্রুয়ারি উপজেলার জোরারগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এক বিশাল জনসভার মাধ্যমে নৌকার পক্ষে সর্বশেষ শোডাউন দেন এ আসনের এমপি গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে আবারো বিজয়ী করার জন্য কাজ করতে সমাবেশ থেকে নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেয়া হয়। মীরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা, বিসিক শিল্প নগরী স্থাপন, সোনাপাহাড় ও সুফিয়া রোডে গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অধীনে আবাসিক প্লট নির্মাণ, গ্রামীণ সড়কের ব্যাপক উন্নয়ন, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন ভবন নির্মাণ সহ বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের মাধ্যমে আগামী নির্বাচনেও আওয়ামী লীগের প্রার্থী জয়ী হবে বলে আশাবাদী দলটির নেতাকর্মীরা।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি। দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসন থেকে তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন তালিকায় হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে তার নামই ঘুরে-ফিরে আলোচনায় আসছে।

হেভিওয়েট এই প্রার্থীর সঙ্গে বর্তমানে উপজেলার সর্বত্র আলোচিত হচ্ছে চট্টগ্রামের জুনিয়র চেম্বারের সহসভাপতি নিয়াজ মোর্শেদ এলিট-এর নাম। একদিকে চট্টগ্রামের সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের ঘনিষ্ঠ ও আস্থাভাজন হওয়া, অপরদিকে চট্টগ্রামের রাজনৈতিক গ্রুপিংয়ের জের ধরে কনিষ্ঠ প্রার্থী হওয়া সত্ত্বেও নানাভাবে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বী  হিসেবে আলোচিত তিনি। ঢাকা ব্রাদার্স ইউনিয়নের সভাপতি, বড়তাকিয়া গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও জুনিয়র চেম্বার ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের সহসভাপতি নিয়াজ মোর্শেদ এলিট। দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের মাধ্যমে সক্রিয় থাকলেও এবার রাজনীতিতে জড়াতে চান সাবেক এই ছাত্রনেতা। আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পাওয়ার জন্য জোর লবিং করছেন গণপূর্ত মন্ত্রীর এক সময়ের শিষ্য চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ মো. গিয়াস উদ্দীন। তিনি দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার জন্য হাই কমান্ডের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন। বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে হেরে যাওয়ার পর থেকে সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। পাশাপাশি উপজেলার বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করছেন।

আওয়ামী লীগ থেকে এখানে মনোনয়ন প্রাপ্তির ব্যাপারে মন্ত্রীপুত্র ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান রুহেলের নামও আলোচনায় রয়েছে। শরীর সুস্থ থাকলে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনই এখান থেকে প্রার্থী হবেন বলে সকলের জানা। এরপরও কোনো কারণে তিনি অপারগ হলে তাঁর পুত্র মাহবুব রহমান রুহেলের জন্য তাঁর চেষ্টা তদবীরের অন্ত  নেই। ইতিমধ্যে তিনি দলের কর্মকাণ্ড ছাড়া ও সামাজিকভাবে রুহেলকে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছেন বিশেষভাবেই।  

এ ছাড়া মহাজোটের সঙ্গে সমঝোতা না হলে মীরসরাই আসনে প্রার্থী হতে পারেন সাবেক শিল্পমন্ত্রী ও বাংলাদেশ সাম্যবাদী দলের (বাসদ) সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া। জাতীয় পার্টি থেকে চট্টগ্রাম উত্তর জেলার সহসভাপতি আহম্মদ হোসেন অথবা সদস্য শায়েস্তা খান চৌধুরী প্রার্থী হতে পারেন বলে জানা গেছে।

অপরদিকে উপজেলাতে দলীয় কার্যালয় না থাকলেও বিএনপি পুলিশের নজর এড়িয়ে নির্বাচনী কার্যক্রম চালাচ্ছেন অনেকটা ঘরোয়াভাবে। দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা দলটির নেতারা এখনো নানা ভাগে বিভক্ত। তবে দলীয় প্রধান বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর নেতাদের মধ্যে ঐক্যের সুর বাজছে। অষ্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির সাবেক এমপি এমএ জিন্নাহ ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের কাছে পরাজিত হওয়ার পর বিএনপি থেকে বেরিয়ে এলডিপিতে যোগ দেন। তারপর থেকে উপজেলা বিএনপির রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসেন দলটির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও ক্লিফটন গ্রুপের চেয়ারম্যান প্রফেসর কামাল উদ্দিন চৌধুরী। নবম সংসদ নির্বাচনে তিনি বিএনপি থেকে নির্বাচন করে পরাজিত হন। তবে এবার শারীরিক অসুস্থতার কারণে এবার তিনি নির্বাচন করবেন না। তাঁর স্থলে বর্তমানে সর্বাধিক আলোচিত জাসাস চট্টগ্রাম উত্তর জেলার সাধারণ সম্পাদক শাহীদুল ইসলাম চৌধুরী। তিনি উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক। দলের সকল স্তরের নেতাকর্মীদের সুখে দুখে পাশে থাকায় সবার কাছে সমাদৃত। এ ছাড়া সম্ভাব্য প্রার্থীর মধ্যে রয়েছেন উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক নুরুল আমিন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান (বহিষ্কৃত) নুরুল আমিন। আবার সর্বশেষ নতুন চমক হিসেবে কৃষকদলের চট্টগ্রাম জেলা সেক্রেটারি অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম লতিফীর নামও আলোচনায় রয়েছে। শিক্ষাবিদ, সমাজসেবক, জনদরদী ও কর্মীবান্ধব সংগঠক হিসেবে নেতৃত্বের জন্য তিনি প্রত্যন্ত অঞ্চলে সমাদৃত। বিএনপির আরো প্রার্থীর মধ্যে রয়েছেন কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা দলের সহসভাপতি মনিরুল ইসলাম ইউসুফ। প্রত্যেকেই দীর্ঘদিন মাঠে কাজ করছেন। মাঠে সক্রিয় না থাকলেও প্রার্থী হতে পারেন বলে জানা গেছে সাবেক এমপি, এলডিপির কেন্দ্রীয় নেতা এম.এ জিন্নাহ, খালেদা জিয়ার সাবেক উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) জেড এ.খান, তারেক রহমান স্বদেশ প্রত্যাবর্তন পরিষদ যুক্তরাষ্ট্রের সভাপতি পারভেজ সাজ্জাদ। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধার সন্তান আব্দুল্লাহ সেলিম-এর নাম আলোচনায় রয়েছে।

অন্যান্য দলের প্রার্থীর মধ্যে ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের (চরমোনাই) আব্দুল্লাহ হারুন মো. কাউছার আলম, এলডিপি শফিউল আলম, বিএনএফ এর মাওলানা ইউছুফ, কল্যাণ পার্টির চট্টগ্রাম উত্তর জেলা সভাপতি দিদারুল আলম সুমন এর নাম শোনা যাচ্ছে।
চট্টগ্রাম-১ সংসদীয় আসন হলো বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের ২৭৮নং আসন। মীরসরাই উপজেলায় ১৬টি ইউনিয়ন ও দু’টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। মীরসরাইতে বর্তমানে ২ লাখ, ৭৩ হাজার ৫৬ জন ভোটার রয়েছেন। জনসংখ্যা প্রায় ৬ লাখ। মীরসরাইতে নির্মাণ করা হচ্ছে এশিয়ার বৃহত্তম শিল্প পার্ক মীরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল। দেশের লাইফ লাইনখ্যাত ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ২৮ কিলোমিটার অংশ পড়েছে মীরসরাইতে। তা ছাড়া ভারতের আসাম, ত্রিপুরা সহ কয়েকটি অঙ্গরাজ্যের সামীনা পড়েছে মীরসরাইয়ের পাশে।

আগামীকাল: ঝিনাইদহ-২



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

MD shakil

২০১৮-০৩-১৪ ২১:৫২:৫৮

খুব ভালো, চট্টগ্রাম ৪ ও ১৩ আসনের বিস্তারিত জানানোর অনুরোধ থাকলো

আপনার মতামত দিন

বাংলাদেশে বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন নিশ্চিতে মার্কিন কংগ্রেসে রেজ্যুলেশন পাস

‘সরকার আর ১৫ দিন ক্ষমতায়, বেআইনি আদেশ মানবেন না’

ড. কামাল হোসেনের গাড়িবহরে হামলা

খামোশ বললেই জনগণ খামোশ হবে না

সিইসির নির্দেশিত তদন্ত ফল প্রকাশ পাবে কি?

চলে গেলেন আমজাদ হোসেন

সিলেটে রচিত হলো ইতিহাস

কুমিল্লা কারাগারে অনশনে মনিরুল হক চৌধুরী

সারা দেশে ধরপাকড় অব্যাহত

রাখাইনে সেনা অভিযানকে গণহত্যা আখ্যা দিলো মার্কিন কংগ্রেস

নির্বাচন ঘনিয়ে আসায় বেড়েছে দমনপীড়ন

পাবনায় চলন্ত ট্রেনের ছাদ থেকে পড়ে নিহত ৩

শ্রদ্ধা ভালোবাসায় জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের স্মরণ

নিরাপত্তা চেয়ে বিএনপির প্রার্থী জহির উদ্দিন স্বপনের জিডি

শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত যুদ্ধ করে যাবো

এহিয়াকে চ্যালেঞ্জ মুহিব ও এনামের