জামিনে স্থগিতাদেশ সরকারের ইচ্ছার প্রতিফলন: ফখরুল

এক্সক্লুসিভ

স্টাফ রিপোর্টার | ১৫ মার্চ ২০১৮, বৃহস্পতিবার | সর্বশেষ আপডেট: ১২:৪৩
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন স্থগিতের ঘটনায় আশাহত হয়েছেন জানিয়ে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আদালতের কার্যক্রমের মাধ্যমে সরকারের ইচ্ছার প্রতিফলন ঘটছে। গতকাল দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। মির্জা আলমগীর বলেন, একে একে সমস্ত প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করেছে সরকার। এখন বিচার বিভাগকেও ধ্বংস করতে চায়। আমরা যেন আইনি সুবিধা না পাই বিচার বিভাগকে দলীয়করণের মাধ্যমে সেই ব্যবস্থা করা হচ্ছে। তিনি বলেন, আইনি প্রক্রিয়াকে দীর্ঘসূত্রতা করে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি বিলম্ব করা হচ্ছে। খালেদা জিয়াকে রাজনীতি ও নির্বাচন থেকে দূরে সরিয়ে রাখার জন্য নীলনকশার মাধ্যমে তাকে কারান্তরীণ করে রাখা হয়েছে। খালেদা জিয়া যেন দ্রুত কারাগার থেকে বের হতে না পারেন, সে জন্য ছলচাতুরী করছে সরকার।
এমনকি তাকে ওকালতনামায় পর্যন্ত সই করতে দিচ্ছে না। উল্লেখ্য, কারাগারে থাকা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন আগামী রোববার পর্যন্ত স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগ। এই সময়ের মধ্যে জামিন স্থগিতের আবেদনকারীদের আপিলের অনুমতি চেয়ে আবেদন করতে বলা হয়েছে। বিএনপির মহাসচিব বলেন, অবৈধ অনৈতিক সরকার ভয়াবহ অত্যাচার-নির্যাতনের পথ বেছে নিয়েছে। আইনের  শাসনকে একে একে ধ্বংস করে চলেছে। গণতন্ত্রের প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে ধ্বংস করে ফেলেছে। আইনি প্রক্রিয়ায় যে জামিনের ব্যবস্থা করা হচ্ছে, সেগুলোকে দীর্ঘসূত্রতার পাশাপাশি বিভিন্ন ছলচাতুরী ও কলাকৌশলের মধ্য দিয়ে বিলম্বিত করছে সরকার। হাইকোর্টে দেশনেত্রীকে জামিন দেয়া হলো, তারপরও তিনি যেন বের হতে না পারেন, সে জন্য ছলচাতুরীর মাধ্যমে আবার দীর্ঘসূত্রতা শুরু হয়েছে। বাংলাদেশে এই সরকার সবচেয়ে বড় ক্ষতি যেটা করেছে, সেটা হচ্ছে বিচার বিভাগকে সম্পূর্ণ দলীয়করণ করেছে। তার প্রমাণ আমরা দেখেছি। প্রধান বিচারপতিকে জোর করে দেশত্যাগে বাধ্য করা হয়েছে। জোর করে তাকে পদত্যাগও করানো হয়েছে। জুনিয়র যারা ছিলেন তাদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। বিচারব্যবস্থা ছিল মানুষের শেষ ভরসার স্থল। এখন এটার ওপরও তারা চড়াও হয়েছে। তিনি বলেন, সরকার বিরোধী রাজনৈতিক দল ছাড়া আবার একটি নির্বাচন করতে চক্রান্ত করছে। সে জন্য বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা-হামলা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ড. আবদুল মঈন খান, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান মীর মোহাম্মদ নাসিরউদ্দিন, খন্দকার মাহবুব হোসেন, সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদিন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এজে মোহাম্মদ আলী, আবদুস সালাম, আতাউর রহমান ঢালী, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন ও নজরুল ইসলাম মঞ্জু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নান্নুর বাসায় ডাকাতি, মালামাল লুট

ধর্ষিত হয়েছিলেন রিগ্যান কন্যা!

ঢাকায় পৌঁছেছে প্যানেল মেয়র ওসমান গণির মরদেহ

মহাকাশ গবেষণায় জাপানের সাফল্য

এলকোহল পানে বছরে মারা যান ৩০ লাখ মানুষ

বিতর্কের মধ্যে মালদ্বীপে ভোট গ্রহণ শুরু

ইরানে সামরিক মহড়ায় হামলা চালালো কে?

বৌদ্ধ ধর্মগুরু যখন যৌন নির্যাতনকারী

ডোমারে নৈশ কোচের ধাক্কায় বৃদ্ধ নিহত

‘এখন পর্যন্ত এ নিয়ে কোনো সমস্যায় পড়তে হয়নি’

বাংলাদেশী অভিবাসীদের ‘উইপোকা’ বললেন অমিত শাহ

কোটচাঁদপুরে মাদক ব্যাবসায়ীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার

জামায়াতকে বাদ দিয়ে নতুন ধারার রাজনীতির সূচনা

আওয়ামী লীগ ছাড়া জাতীয় ঐক্য হতে পারে না

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের প্রতিবাদে সম্পাদক পরিষদের মানববন্ধন ২৯শে সেপ্টেম্বর

চাকরি না পেয়ে সুইসাইড নোট লিখে খুবি ছাত্রের আত্মহত্যা