ডিভোর্স কার্যকর হলো না শাকিব-অপুর

বিনোদন

স্টাফ রিপোর্টার | ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, বৃহস্পতিবার
তিনমাস পূর্ণ হয়ে গেলেও আজ বিচ্ছেদ প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হয়নি ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত জুটি শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের। ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন তাদের ১২ই মার্চ পর্যন্ত সময় দিয়েছে।
ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের (অঞ্চল-৩) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হেমায়েত হোসেন জানান, পারিবারিক আইন অধ্যাদেশ, ১৯৬১ আইনের আলোকেই শাকিব ও অপুর বিবাহ বিচ্ছেদের বিষয়টি এগোচ্ছে।
বিভিন্ন গণমাধ্যমে শাকিব-অপুর বিচ্ছেদ কার্যকরী হচ্ছে, এমন খবরের পরিপ্রেক্ষিতে হেমায়েত হোসেন বলেন, আমার চোখেও পড়েছে এমন দু-একটি নিউজ, যে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের বিচ্ছেদ আজ কার্যকর হলো। বিষয়টা আসলে তা নয়। শাকিব খান যেদিন স্বাক্ষর করেছিলেন, সেদিন থেকে তিন মাস পর কার্যকর হবে ব্যাপারটা এমন নয়। আমরা সিটি কর্পোরেশন তাদের তিন মাসে তিনবার ডাকব, সেই তৃতীয়বার বিষয়টির ফয়সালা হবে। যে কারণে আজ তাদের বিচ্ছেদ বা পুনরায় সংসার শুরু কোনোটাই হচ্ছে না।
এর আগে আমরা দু’বার তাদের ডেকেছি। প্রথমবার অপু বিশ্বাস এলেও শাকিব খান বা উনার কোনো প্রতিনিধি আসেননি।
দ্বিতীয়বার তারা কেউই আসেননি। আগামী ১২ই মার্চ আমাদের তৃতীয় বৈঠক। সেখানে যদি তারা না আসেন, তা হলে আমরা মামলা খারিজ করে দেবো।
গত বছরের ডিসেম্বরে অপু বিশ্বাসকে তালাকের নোটিশ পাঠান শাকিব খান। তালাকের একটি কপি ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে পাঠানো হয়।
[এমকে]



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

দোহারে বিএনপির মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ, প্রার্থীসহ আটক ১০

পুলিশ প্রটোকলে আইনমন্ত্রীর গণসংযোগ

যত বাধাই আসুক নির্বাচনে থাকব

নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নির্মোহ ও নিরপেক্ষ: এইচ টি ইমাম

আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার হয়ে রিকশাচালককে মারধরকারী নারী যা বললেন

‘২০১৪-তে মানুষ ভোট দিয়েছে বলেই বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল’

টাইমের বর্ষসেরা ব্যক্তিত্বের তালিকায় শহিদুল আলম

সিলেটে ঐক্যফ্রন্টের পথসভায় বাধা, মাইক খুলে নিয়েছে পুলিশ

নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন বিএনপির তমিজ উদ্দিন

‘ইসিতে অভিযোগ জানিয়ে ফেরার পথে বিএনপি নেতা আটক’

ডিসিদের রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ কেন অবৈধ নয়

আজই অনাস্থা ভোটের মুখে পড়ছেন তেরেসা মে

নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির নতুন অভিযোগ

নির্বাচন যেনো দুধ-ভাত খেলা: ববি হাজ্জাজ

সিইসি অসহায়, বিব্রত: সেলিমা রহমান

রোহিঙ্গাদের অবস্থার উন্নতি ও নৃশংসতায় দায়ীদের বিচার চায় যুক্তরাষ্ট্র