ঐক্যবদ্ধ হয়ে খালেদাকে মুক্ত করার আহ্বান ফখরুলের

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, মঙ্গলবার, ১:৪৫ | সর্বশেষ আপডেট: ১:৫০
গণতন্ত্র বিপন্ন হয়ে গেছে। দেশের অর্থনীতিও নষ্ট হয়েছে বলে দাবি করেছেন বিএনপির মহসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ আযোজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, এই ষড়যন্ত্র যদি আমরা প্রতিরোধ করতে না পারি তাহলে দেশের অস্তিত্ব নষ্ট হয়ে যাবে। দেশের অর্থনীতি নষ্ট করে ফেলেছে, দেশের ভবিষ্যত নষ্ট করে ফেলেছে। তাই আর কাল বিলম্ব না করে আসুন জাতি ধর্ম নির্বিশেষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশনেত্রীকে মুক্ত করি। জনগনের যে অধিকার, স্বাধীন দেশে বসবাসের অধিকার প্রতিষ্ঠা করি।

ফখরুল বলেন, আগামী নির্বাচনে যাতে জাতীয়তাবাদী শক্তি অংশগ্রহন করতে না পারে সেজন্য সরকার চক্রান্ত করছে। এর বিরুদ্ধে আমাদের যে আন্দোলন তার নেতৃত্ব দিয়েছেন খালেদা জিয়া। সেজন্য সরকার তাকে মিথ্যা মামলা ও জালজালিয়াতের মামলায় সাজা দিয়ে পরিত্যক্ত কারাগারে বন্দি করে রেখেছে।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, যিনি স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য আজীবন সংগ্রাম করেছেন,  আমাদের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের যিনি নেতৃত্ব দিচ্ছেন সেই নেত্রীকে আজকে কারারুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। এই অবৈধ অনৈতিক সরকার অত্যন্ত সুপরিকল্পনার মধ্য দিয়ে আমাদের নেত্রীকে রাজনীতি থেকে দুরে সরিয়ে দেয়ার চক্রান্ত করেছে। আগামী নির্বাচনে খালেদা জিয়া, জাতীয়তাবাদী দল এবং ২০ দল যাতে অংশ নিতে না পারে সেজন্য এই চক্রান্ত। আমাদের মনে রাখতে হবে আমরা একটা ফ্যাসিস্ট শক্তি ও দেশের স্বাধীনতা ধ্বংসকারী শক্তির সঙ্গে লড়াই করছি। এই লড়ায়য়ে খালেদা জিয়া নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তার মুক্তির জন আমাদের সবাইকে এখন নেমে আসতে হবে। প্রতিবাদ করতে হবে। আন্দোলন ও গণঅভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে তাকে মুক্ত করতে হবে।
[আলীম/এমকে]

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

kazi

২০১৮-০২-২০ ০২:০১:১৯

বাংলাদেশে কখনই গনতন্ত্র ছিল না। ১৯৬৯ এর নির্বাচনের পর ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত বলা যায় পরিবার তন্ত্র চালুর পূর্ব পর্যন্ত। তাই যে দেশে গণতন্ত্রই নাই বিপন্ন হবে কিভাবে ? বিপন্ন হয়েছে তিন পরিবার তন্ত্রের একটি পরিবার তন্ত্র।

আপনার মতামত দিন

কল্যাণপুরে রিজভীর নেতৃত্বে বিএনপির বিক্ষোভ

রাশিয়ায় এলাহি কান্ড

নরসিংদীতে দুই সন্তানকে হত্যার পর বাবার আত্মহত্যা

মার্কিন পণ্যের ওপর ইইউ’র শুল্ক আরোপের সিদ্ধান্ত কার্যকর

কেমব্রিজ ইউনিভার্সিটিতে টপলেস যুবতী

কি বার্তা দিলেন মেলানিয়া!

ময়মনসিংহে মাদকবিরোধী অভিযানে নিহত ২

‘এবার কমেডি গল্পে ভালো কিছু দেখানোর চেষ্টা ছিলো’

মাথা নিচু করে মাঠ ছাড়লেন মেসি

দুই কিংবদন্তীর দেখা

শেষ ষোলতে ফ্রান্স, পেরুর বিদায়

জল্পনা উড়িয়ে লড়াইয়ের অপেক্ষায় ব্রাজিল-নেইমার

নির্বাচন গাজীপুরে আলোচনায় খুলনা

ভ্লাদিমির পুতিনই যেখানে তারকা

ব্রাজিল বাড়িতে এলাহি আয়োজন

কৌশল নিয়ে বিএনপিতে নানা চিন্তা