আলাপন

‘তারা সঠিক পথে থাকলে অনেক দূর পর্যন্ত যাবে’

বিনোদন

ফয়সাল রাব্বিকীন | ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, মঙ্গলবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:৪৯
জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী রবি চৌধুরী। নিজের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে এরই মধ্যে ধারাবাহিকভাবে অনেক শ্রোতাপ্রিয় গান তিনি উপহার দিয়েছেন। অডিও একক অ্যালবামের বাইরে চলচ্চিত্রেও তিনি রেখেছেন সফলতার ছাপ। আর স্টেজেতো সারা বছরই ব্যস্ত থাকেন রবি। এতটা দীর্ঘ পথ সংগীতে পাড়ি দিয়েও এতটুকু ক্লান্ত নন এ তারকা। বরং আগের চেয়ে বেশি উদ্যম নিয়ে শো করে বেড়াচ্ছেন দেশ বিদেশে।
ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন নতুন গানেও। সব মিলিয়ে কেমন আছেন? রবি চৌধুরী হেসে বলেন, বেশ ভালো। আসলে জীবনতো একটাই। তাই ভালো থাকার চেষ্টা থাকা দরকার। আমিও সব সময় সেই চেষ্টা করি। পরিবার-পরিজন নিয়ে ভালো আছি আল্লাহুর রহমতে। বর্তমান ব্যস্ততা কি নিয়ে? রবি বলেন, এখনতো স্টেজের মৌসুম। প্রচুর শো করেছি। সামনেও রয়েছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে শোগুলো হচ্ছে। আর নতুন গানের ব্যস্ততাতো রয়েছেই। স্টেজ শো করতে কেমন লাগে? রবি বলেন, অনেক ভালো লাগে। কারণ সরাসরি গান শোনানোর মজা কিন্তু আলাদা। সরাসরি গানে আমি শিল্পী হিসেবে যেমন আনন্দ পাই, তেমনি শ্রোতারাও পান। কারণ রেকর্ডেড আর লাইভে অনেক পার্থক্য। আমি একজন সংগীতশিল্পী হিসেবে স্টেজে গান করতে বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। নতুন গান কি করছেন? নচিকেতার সুরে একটি অ্যালবাম করেছিলেন সেটির খবর কি? রবি চৌধুরী বলেন, নতুন গানের কাজতো চলছেই। বেশ কিছু গান করে রেখেছি। সময় পেলেই স্টুডিওতে বসি। আশা করছি খুব শিগগিরই নতুন গান শ্রোতাদের হাতে তুলে দিতে পারবো। আর নচিদার সুরে যে অ্যালবামটি করেছি সেটা নিয়ে আমার প্রত্যাশা অনেক। অনেক পরিকল্পনাও রয়েছে এটি নিয়ে। তাই একটু সময় নিচ্ছি। এই অ্যালবামটিও খুব শিগগিরই প্রকাশ করবো। সিনেমার গান কি করছেন? রবি চৌধুরী বলেন, আসলে সব ধরনের কাজ করতে চাই না। আমি এখন পর্যন্ত সিনেমায় যে গানগুলো করেছি সেগুলো শ্রোতারা খুব ভালোভাবে গ্রহণ করেছেন। আর সর্বশেষ ‘পুত্র এখন পয়সাওয়ালা’ ছবির সব গান আমি সুর ও সংগীত করেছি। সেগুলোর সাড়া ছিলো ভালো। তাই ভালো ছবির জন্য অপেক্ষা করছি। ব্যাটে বলে মিললেই কাজ করবো। চলতি প্রজন্মের শিল্পীদের গান কি শোনা হয় আপনার? কেমন লাগে? রবি চৌধুরী বলেন, আমার মনে হয় তরুণ প্রজন্ম ভালো করছে। বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি আমরা। আমি তরুণ প্রজন্মের অনেকের গানই শুনেছি। আমার কাছে তাদের মেধাবী মনে হয়েছে। তারা সঠিক পথে থাকলে অনেক দূর পর্যন্ত যাবে। আর ভালো মন্দ সব সময় ছিলো, এখনও আছে। ভালো গান ও শিল্পীরাই কিন্তু টিকে যাবে। এটাই নিয়ম। আর একটি কথা বলতে চাই যে, তরুণদের সিনিয়র হিসেবে আমাদের উৎসাহ দেয়া উচিত। আমি কিন্তু তরুণ প্রজন্মকে সব সময় উৎসাহ দেয়ার চেষ্টা করি। সিনিয়রদের উৎসাহ পেলে তারা এগিয়ে যাবার অনেক অনুপ্রেরণা পায়। আবার তরুণ প্রজন্মেরও উচিত সিনিয়রদের শ্রদ্ধা করার। শ্রদ্ধা, ভালোবাসা ও ব্যবহার একটা মানুষকে অনেক দূর নিয়ে যেতে পারে। তাই পারস্পরিক সম্পর্কটা ভালো হওয়া উচিত। এটা আমাদের পুরো সংগীতাঙ্গনের জন্য মঙ্গল। এখনতো ডিজিটালি গান প্রকাশ হচ্ছে। সিডির পরিবর্তে ইউটিউবে গান শুনছে মানুষ। বিষয়টিকে কিভাবে দেখছেন? রবি চৌধুরী বলেন, আমি ব্যাক্তিগতভাবে অডিও ক্যাসেট কিংবা সিডির সময়টাকে মিস করি। কারণ সে সময় রমরমা অবস্থা ছিলো। উৎসবগুলোতে বিভিন্ন শিল্পীর ক্যাসেট কিংবা সিডি বের হতো। সেই বিষয়টা এখন নেই। তবে এটা সময়ের জন্য। আসলে সময়ের সঙ্গে প্রতিটি বিষয়ে পরিবর্তন আসবে এটাই স্বাভাবিক। এখন শ্রোতারা আরও সহজে গান শুনতে পারছে। এটা ইতিবাচক দিক। তবে এর ফলে যেন প্রযুক্তির অপব্যবহার না হয় সেটাই আমি চাইবো।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নতুন সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদ

যৌন হেনস্তায় অভিযুক্ত আর্জেন্টাইন কোচ

বিস্মিত ফিফার লোকজন বলেছিলেন ওহ্‌ মাই গড

পেনাল্টি গোলে দ. কোরিয়াকে হারালো সুইডেন

খালেদার চিকিৎসা নিয়ে পাল্টাপাল্টি

মৌলভীবাজারে ভয়াবহ বন্যা, নিহত ৭

জাহাঙ্গীরের পথসভা, খুলনার মতো নির্বাচন করতে না দেয়ার ঘোষণা হাসানের

অর্থমন্ত্রীকে আইজিডব্লিউ অপারেটরস ফোরামের সভাপতির অভিনন্দন

ঈদের ছুটিতে সড়কে ঝরলো ২৯ প্রাণ

বিডিনিউজ বন্ধের নির্দেশ

শোলাকিয়ায় বৃহত্তম ঈদ জামাত

পেনাল্টি গোলে দ. কোরিয়াকে হারালো সুইডেন

বিএনপি রাজনীতি করার ইস্যু খুঁজছে: ওবায়দুল কাদের

মহাসচিবের সঙ্গে সাক্ষাত করলেন মহানগর উত্তর বিএনপির ৩০ নেতা

বিচারবহির্ভূত একশনের বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে জাতিসংঘের আহ্বান

বিশ্বকাপ দেখতে চাকরি ছাড়ছে কলম্বিয়ানরা