নর্থ সাউথের সমাবর্তনে শিক্ষামন্ত্রী

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যয় সহনীয় পর্যায়ে রাখার আহ্বান

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:৪৪
দেশের উচ্চ শিক্ষা প্রসারে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যয় আরো সহনীয় পর্যায়ে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। গতকাল রাজধানীর বসুন্ধরা নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ২১তম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে তিনি এ আহ্বান জানান। মন্ত্রী বলেন, দেশের আর্থসামাজিক অবস্থা বিবেচনা করে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের টিউশন ফি, ভর্তিসহ সব ব্যয় সহনীয় পর্যায়ে রাখতে হবে। কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে জঙ্গি কার্যক্রম সংক্রান্ত সংশ্লিষ্টতা ছিল, আমরা শক্ত হাতে তা প্রতিরোধ করতে সক্ষম হয়েছি। তিনি আরো বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো দেশের উচ্চশিক্ষায় সেশনজট নিরসনে বিশেষ ভূমিকা রাখছে। তবে অনেকগুলো বিশ্ববিদ্যালয় এখনো ন্যূনতম শর্ত পূরণ করতে ব্যর্থ হচ্ছে। এদের বেশিদিন চলতে দেয়া হবে না। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, অনেকগুলো ধাপ পেরিয়ে তোমরা আজ এ পর্যায়ে এসেছো। তাই সমাজ থেকে নতুন শিক্ষা নিয়ে সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দেশ ও রাষ্ট্রের জন্য অবদান রাখতে হবে। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ব্যবসা ও মুনাফার চিন্তা ত্যাগ করে জনকল্যাণে, সেবার মনোভাব ও শিক্ষায় অবদান রাখার দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে বেসরকারি উদ্যোক্তাদের এগিয়ে আসতে হবে। সমাবর্তন বক্তা যুক্তরাষ্ট্রের কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এবং নোবেল বিজয়ী ড. মার্টিন শেলফি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, তোমরা বেশি উপদেশ না শুনে নিজেদের মৌলিক সত্তাকে বেশি গুরুত্ব দেবে। প্রত্যেককে স্ব-স্ব স্থান থেকে সমাজে অবদান রাখতে হবে। নিজ জীবনের ঘটনা মূল্যায়ন করে তিনি বলেন, আমার বাবা স্কুলের গণ্ডি পেরুতে পারেনি। টিউশন ফি’র অভাবে মা কলেজের গণ্ডি পার হতে পারেনি। কিন্তু আমার প্রবল ইচ্ছা ছিল বিজ্ঞানী হওয়ার। সে অনুযায়ী আমি গবেষণারত ছিলাম। কিন্তু সেই গবেষণা ব্যর্থ হয়। তিনি বলেন, আমাকে বলা হয় নিজের বুদ্ধিমত্তা না থাকলে গবেষণা করা যায় না। এরপর আমি গবেষণা ছেড়ে দিয়ে হাইস্কুলে শিক্ষকতা করি। তখন আমার এক সহকর্মী আমাকে আবার গবেষণার সুযোগ করে দেন। এরপর আমি বুঝতে পারি গবেষণা বিভিন্নভাবে হতে পারে। পরে সেই কাজে আমি সফল হই। তাই হাল ছেড়ে দিলে চলবে না।
সমাবর্তনে বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান বলেন, সকল গ্রাজুয়েটদের জন্য এটি একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত যারা আজ তাদের ডিগ্রি গ্রহণ করছেন। আমরা অত্যন্ত খুশি যে আজ আমরা সফলভাবে ২৮০০ গ্রাজুয়েটকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর দিতে পারছি। তিনি বলেন, আমরা মাত্র ৩টি ডিপার্টমেন্টে ১৩৭ জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিলাম। এখন চারটি অনুষদে ১৬টি ডিপার্টমেন্টে ২৪ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থী পড়াশুনা করছে। বিশ্বখ্যাত স্কলারসের পরিসংখ্যান অনুযায়ী নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি বিজ্ঞান গবেষণায় বর্তমানে বাংলাদেশের সেরা দশ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে একটি। তিনি বলেন, বাংলাদেশের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে এশিয়ার সেরা ১০০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে আমরা উঠে আসার চেষ্টা করে যাচ্ছি। এর জন্য গবেষণায় আমরা বিশেষ জোর দিচ্ছি।
সমাবর্তনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর আতিকুল ইসলাম, প্রো-ভিসি প্রফেসর গিয়াস ইউ আহসান, ট্রাস্টি বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান এমএ কাশেমসহ ট্রাস্টি বোর্ডের অন্যান্য সদস্য, চারটি অনুষদের ডিনসহ শিক্ষক ও অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন। সমাবর্তনে ২৮০০ জন শিক্ষার্থীকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি প্রদান করা হয়। শিক্ষামন্ত্রী ২ জন কৃতী শিক্ষার্থীকে চ্যান্সেলর স্বর্ণপদক এবং ৮ জনকে ভাইস চ্যান্সেলর স্বর্ণপদক প্রদান করেন।



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

তারা কেন এত উদ্বিগ্ন হয়ে উঠছেন?

সিনহার বই নিয়ে বাহাস

কারাগার থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রথম দিককার চিঠি

নিউ ইয়র্কে দুটি অ্যাওয়ার্ড পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

পবিত্র আশুরা আজ

তারুণ্যের ব্যর্থতায় লজ্জার হার

খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে বিচার চলবে

মানবাধিকার ও নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে দুই সংস্থার উদ্বেগ

বাম জোটের কর্মসূচিতে পুলিশের লাঠিচার্জ, আহত অর্ধশত

বিলে স্বাক্ষর না করতে প্রেসিডেন্টের প্রতি সাংবাদিক নেতাদের আহ্বান

১০ কার্যদিবসের সংসদ অধিবেশনে ১৮টি বিল পাস

এখনো জঙ্গি হামলার ঝুঁকিতে বাংলাদেশ

জনগণের বিরুদ্ধে নয়, কল্যাণে আইন করতে হবে

ইতিহাস বদলাতে চায় বাংলাদেশ

গুজব শনাক্তকারী সেল কাজ করবে অক্টোবর থেকে

মেলবোর্নে সন্ত্রাসের অভিযোগ স্বীকার করলো বাংলাদেশের সোমা