রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন দ্রুত করতে জনবল চায় দুর্যোগ মন্ত্রণালয়

শেষের পাতা

বিশেষ প্রতিনিধি | ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, রোববার | সর্বশেষ আপডেট: ১১:০১
বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমার নাগরিকদের প্রত্যাবাসন দ্রুত করতে চায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। এজন্য রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পগুলোতে জনবল নিয়োগ করার একটি প্রস্তাব জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে তারা। প্রস্তাবে প্রতিটি ব্লকে একজন করে ক্যাম্প ইনচার্জ নিয়োগ দিতে ৩০ জন কর্মকর্তা চাওয়া হয়েছে। এছাড়া প্রত্যাবাসন কার্যক্রমের ব্যবস্থাপনা ও এনজিও কার্যক্রম তদারকিতে সহায়তা দিতে ২৭ জন সিনিয়র সহকারী সচিব বা সহকারী সচিবকে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয়ে নিয়োগ দেয়ার অনুরোধ করা হয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রস্তাব খতিয়ে দেখছেন তারা। সহসাই পদায়নের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গেল বছরের ২৫শে আগস্ট থেকে প্রায় সাত লাখ বাস্তুচ্যুত মিয়ানমার নাগরিক বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। তাই বিভিন্ন সময়ে আসা মিয়ানমার নাগরিকসহ বর্তমানে আশ্রয় প্রার্থী মিয়ানমার নাগরিকের সংখ্যা প্রায় ১০ লাখ। এর মধ্যে প্রায় ছয় লাখ উখিয়া উপজেলার কুতুপালং-বালুখালি এলাকায় বরাদ্দ করা তিন হাজার একরের সম্প্রসারিত মেগা ক্যাম্পে বসবাস করছে। অন্যরা উখিয়া ও টেকনাফের ১০টি বিভিন্ন এলাকায় বসবাস করছে। এদিকে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয় রোহিঙ্গাদের ভালোভাবে কীভাবে রাখা যায় এজন্য কিছু চ্যালেঞ্জের কথা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়কে জানিয়েছে। ওই সব চ্যালেঞ্জের মধ্যে আগামী বর্ষার আগে প্রাথমিক পর্যায়ে নির্মিত অস্থায়ী শেল্টারগুলো মেরামত করা, খাদ্য বিতরণের দ্বৈততা পরিহারসহ সবার ন্যূনতম খাবার পাওয়া নিশ্চিত করার কথা বলা হয়েছে। এছাড়া যেকোনো মহামারী রোধসহ সবার প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সেবা, আট হাজারের বেশি গভীর নলকূপ স্থাপন ও রোহিঙ্গাদের নিত্যকার হানাহানি রোধ করতে প্রশাসনিক নিয়ন্ত্রণ ও শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা করার কথা বলা হয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এরই মধ্যে ৭৩ জন কর্মকর্তাকে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের কার্যালয়ে সংযুক্তি দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে উপ-সচিব ১৭ জন ও সিনিয়র সহকারী সচিব ৫৬ জন। এর বিপরীতে বর্তমানে মাত্র ১২ জন সিনিয়র সহকারী সচিব ও ৪ জন উপ-সচিব কর্মরত আছেন। সব মিলিয়ে ১৬ জন কর্মকর্তা কর্মরত আছেন। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় মনে করে, এত অল্প জনবল দিয়ে প্রত্যাবাসন কার্যক্রম চালানো কষ্টকর। এজন্য নতুন করে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় জনবল প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নতুন সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদ

যৌন হেনস্তায় অভিযুক্ত আর্জেন্টাইন কোচ

বিস্মিত ফিফার লোকজন বলেছিলেন ওহ্‌ মাই গড

পেনাল্টি গোলে দ. কোরিয়াকে হারালো সুইডেন

খালেদার চিকিৎসা নিয়ে পাল্টাপাল্টি

মৌলভীবাজারে ভয়াবহ বন্যা, নিহত ৭

জাহাঙ্গীরের পথসভা, খুলনার মতো নির্বাচন করতে না দেয়ার ঘোষণা হাসানের

অর্থমন্ত্রীকে আইজিডব্লিউ অপারেটরস ফোরামের সভাপতির অভিনন্দন

ঈদের ছুটিতে সড়কে ঝরলো ২৯ প্রাণ

বিডিনিউজ বন্ধের নির্দেশ

শোলাকিয়ায় বৃহত্তম ঈদ জামাত

পেনাল্টি গোলে দ. কোরিয়াকে হারালো সুইডেন

বিএনপি রাজনীতি করার ইস্যু খুঁজছে: ওবায়দুল কাদের

মহাসচিবের সঙ্গে সাক্ষাত করলেন মহানগর উত্তর বিএনপির ৩০ নেতা

বিচারবহির্ভূত একশনের বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে জাতিসংঘের আহ্বান

বিশ্বকাপ দেখতে চাকরি ছাড়ছে কলম্বিয়ানরা