৫৭ ধারা একটি কালো আইন

ফেসবুক ডায়েরি

অমিতাভ রেজা চৌধুরী | ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, শুক্রবার | সর্বশেষ আপডেট: ১:২৬
চলচ্চিত্র গবেষক ও লেখক অধ্যাপক ফাহমিদুল হকের বিরুদ্ধে ৫৭ ধারায় যে হয়রানিমূলক মামলা করা হয়েছে তা প্রত্যাহার করা হোক।
৫৭ ধারা একটি কালো আইন। এই আইন মানুষের কণ্ঠরোধ করার জন্য, মানুষকে দমন করার জন্য এবং মানুষের প্রতিবাদকে নস্যাৎ করতে প্রবর্তন করা হয়েছে। এই কালো আইনের সর্বশেষ শিকার অধ্যাপক ফাহমিদুল হক। আমরা সকলে অবিলম্বে এই মামলা প্রত্যাহার দাবি করছি।
আমরা আশা করি মামলাকারী শিক্ষকের শুভবোধের উদয় হবে এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এমন হয়রানি এবং হঠকারি পদক্ষেপ থেকে নিজেদের মর্যাদাকে সুরক্ষিত করবেন।
বাংলাদেশের সকল চলচ্চিত্র নির্মাতা, চলচ্চিত্র সংগঠক, চলচ্চিত্র শিক্ষক ও গবেষক, চলচ্চিত্র সাংবাদিক, চলচ্চিত্র কর্মী সকলের কাছে আহ্বান আপনারা এই কালো আইনের (৫৭ ধারা) বিরুদ্ধে সোচ্চার হোন এবং অধ্যাপক ফাহমিদুল হকের সপক্ষে অবস্থান নিন। আমরা অবশ্যই অধ্যাপক ফাহমিদুল হকের সঙ্গে আছি, পাশে আছি এবং লড়াইয়ের সম্মুখে আছি!



এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

আপনার মতামত দিন

নববধূকে সিগারেটের আগুনে ছ্যাঁকার অভিযোগ, মামলা

৩০ এপ্রিলের মধ্যে বিএনপির বাকিরাও শপথ নেবেন : হানিফ

লাবণ্যকে বহনকারী মোটরবাইক চালক আটক

সরকারের চাপে শপথ নিচ্ছে বিএনপির নির্বাচিতরা

‘গেট আউট’ মোকাব্বির যোগ দিলেন গণফোরামের কাউন্সিলে

‘সাংগ্রি-লা হামলায় নিহত হয়েছে জাহরান হাশমি’

শ্রীলঙ্কায় হামলার আশঙ্কা, মসজিদ বা গির্জায় প্রার্থনা না করার আহ্বান

নড়াইলে অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা

ইরাকে ৪৫ বাংলাদেশী শ্রমিক উদ্ধার

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রিজভীর নেতৃত্বে মিছিল

কথিত বাংলাদেশী অভিবাসী ইস্যুতে উত্তপ্ত ভারতের সুপ্রিম কোর্টের বেঞ্চ

‘মাসের ত্রিশ দিনই ক্যামেরার সামনে থাকতে হচ্ছে’

বগুড়া জেলা বিএনপির সভাপতিকে শোকজ

কুষ্টিয়ায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

প্রয়োজন হলে ফের ইমরানের সঙ্গে কথা বলবেন মুনমুন সেন

মোদীকে কুর্তা-মিষ্টি পাঠানোর কথা মানলেন মমতা