বিএনপি নেতাদের প্রশ্ন

তখন সংবিধান কোথায় ছিল?

প্রথম পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১৩ জানুয়ারি ২০১৮, শনিবার | সর্বশেষ আপডেট: ৪:২৪
তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে আওয়ামী লীগ-জামায়াতের আন্দোলনের সময় দেশের সংবিধান কোথায় ছিল এমন প্রশ্ন করেছেন বিএনপি নেতারা। প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় দলটির স্থায়ী কমিটির   সদস্য মির্জা আব্বাস বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকার জন্য যা যা করা দরকার, সবই করবে। তারই অংশ হিসেবে প্রধানমন্ত্রী ভাঙা রেকর্ড বাজিয়েছেন। তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, এখন উনারা সংবিধানের কথা বলেন। জামায়াতের সঙ্গে মিলে যখন আওয়ামী লীগ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে আন্দোলন করেছিল, তখন সংবিধান কোথায় ছিল? বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গণতন্ত্রের প্রতি সম্মান দেখান বলেই সেদিন আমরা তাদের দাবি মেনে নিয়েছিলাম। সেদিন যদি আমাদের মনোভাব আজকের আওয়ামী লীগের মতো হতো, তাহলে কী হতো? মির্জা আব্বাস বলেন, দেশবাসী প্রত্যাশা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী একটি গঠনমূলক ও আশা জাগানিয়া বক্তব্য দেবেন।
কিন্তু তিনি যে ধরনের বক্তব্য দিয়েছেন তা দেশের মানুষকে বিভ্রান্ত করবে। পরিবেশকে আরও বিষিয়ে তুলবে। বিএনপি স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগ আগেও একদলীয় শাসনের পথে গেছে, আবারও সে পথে যাচ্ছে। কিন্তু সে পথ সহজ কোনো পথ নয়; সে পথ পিচ্ছিল পথ। সে পথে গেলে তারাই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাদের এ পথচলা আগে ফলপ্রসূ হয়নি, এবারও হবে না। জনগণকে বাইরে রেখে ক্ষমতা দখলের চক্রান্ত জনগণই সফল হতে দেবে না।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

kazi

২০১৮-০১-১৩ ০২:০৩:৫৯

বিদায়ী সরকারের পছন্দের তত্বাবধায়ক সরকার প্রধান মনোনীত করেও পরাজিত হতে দেখেছি। পরাজিত হয়ে তত্বাবধায়ক সরকারের বিরুদ্ধে পরাজিত দল ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। নিজের কর্মকাণ্ডের কথা স্মরণ না করে তত্বাবধায়ক সরকারকেই দোষারোপ করেছ। নির্বাচন সুষ্ঠ হয়নি অভিযোগ করেছে। সর্বোপরি ২০০৮ সালের আগেকার তত্বাবধায়ক সরকার আমলে দুই নেতৃ জেল খেটে যে তিক্ত অভিজ্ঞতা হয়েছে তাতেই [বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত] সাংবিধানিক বিদায়ী সরকার নির্বাচন কালীন সরকার উত্তম পদ্ধতি ।

আপনার মতামত দিন

ঝিনাইদহের ওসি কবিরকে প্রত্যাহার

যশোরে পৃথক দুই ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৪

হোটেলে যেতে রাজি না হওয়ায় প্রেমিকাকে কুপিয়ে জখম

যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি কার্যক্রম বন্ধ

বগুড়ায় ট্রাকের ধাক্কায় প্রাণ গেল দুই পথচারীর

ইয়েমেনির হামলায় নিহত ৮ সৌদি সেনা

আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে রোহিঙ্গা নির্যাতনের বিচার দাবি, প্রত্যাবর্তনে কানাডাকে বিরোধিতা করার আহ্বান

চালককে গলাকেটে হত্যার পর অটো ছিনতাই

যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা নীতিতে বড় পরিবর্তন এনে সামরিক শক্তি বাড়াতে চায় যুক্তরাষ্ট্র

ইংলিশ চ্যানেলে ব্রিজ নির্মাণ করে ফ্রান্সকে যুক্ত করার প্রস্তাব: বিদ্রুপের শিকার ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী

উখিয়ায় রোহিঙ্গাদের ২ গ্রুপের গোলাগুলি, নিহত ১

উত্তরাঞ্চলের কয়েক জায়গায় মৃদু ভূমিকম্প

‘মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে আমার একটা দাপটের সিনেমা করার ইচ্ছা ছিল’

স্বাক্ষর করে গরহাজির এমপিদের চিফ হুইপের চিঠি

কলেজে এসকেলেটর বিলাস, ৪৫৪ কোটি টাকার প্রকল্প

ইইউয়ে পোশাক রপ্তানিতে প্রবৃদ্ধি ধরে রেখেছে বাংলাদেশ